শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
কর্মসৃজন প্রকল্পে সাবেক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে সড়কের কাজে বাধার অভিযোগ

কর্মসৃজন প্রকল্পে সাবেক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে সড়কের কাজে বাধার অভিযোগ

আলোর মনি রিপোর্ট: লালমনিরহাট জেলার লালমনিরহাট সদর উপজেলায় আশরাফুল আলম ওরফে সাহেব নামের সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্যের বিরুদ্ধে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

 

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৯ জুন) বিকেলে বর্তমান ইউপি সদস্য রঞ্জিত কুমার রায় ও প্রকল্পের শ্রমিক সুপারভাইজার ফুলবাবুসহ লালমনিরহাট সদর উপজেলার পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের দক্ষিণ মণ্ডলপাড়ার আট বাসিন্দা লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক ও লালমনিরহাট পুলিশ সুপার বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

 

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, আশরাফুল আলম পঞ্চগ্রাম ইউপির ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য। ৪০দিনের কর্মসৃজন প্রকল্পের আওতায় লালমনিরহাট সদর উপজেলার পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের দক্ষিণ মণ্ডলপাড়ার একটি কাঁচা রাস্তায় মাটি ভরাটের কাজ চলছিল। তবে আশরাফুল আলম হুমকি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে শ্রমিকদের সেখান থেকে উঠিয়ে দিয়েছেন বলে লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।

 

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, দক্ষিণ মণ্ডলপাড়ার কাঁচা রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছিল। এ অবস্থায় রাস্তাটি সংস্কারের জন্য ৪০দিনের কর্মসৃজন কর্মসূচির আওতায় মাটি ভরাটের কাজ শুরু হয়েছিল। তবে কাজ শুরুর ৬দিন পর মঙ্গলবার (৭ জুন) দুপুরে আশরাফুল আলম ওই রাস্তায় এসে কাজ বন্ধ করে দেন। এ সময় আশরাফুল আলম প্রকল্পে কর্মরত শ্রমিকসহ এলাকার লোকজনকে গালাগাল করেন।

 

পরে আশরাফুল আলম বলেন, এই গ্রামের ভোটাররা আমাকে ভোট না দিয়ে নির্বাচনে হারিয়ে দিয়েছেন। তাই আমি এই গ্রামের কোনো উন্নয়ন কাজ হতে দেব না। আমার কথার বাইরে কেউ এই গ্রামের কোনো কাজ করতে চাইলে রক্তের বন্যা বইয়ে দেওয়া হবে।

 

এসব কথা বলে আশরাফুল আলম কর্মরত শ্রমিকদের জোর করে উঠিয়ে দেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

 

রঞ্জিত কুমার রায় বলেন, আইন নিজের হাতে তুলে নেওয়ায় আশরাফুল আলমের বিরুদ্ধে তদন্ত করে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবিতে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

 

ফুলবাবু বলেন, আশরাফুল আলমের হুমকির পর থেকে এখানে কেউ কাজ করতে সাহস পাচ্ছেন না। শুক্রবার (১০ জুন) পর্যন্ত ওই সড়কে কাজ বন্ধ হয়ে আছে বলে জানান তিনি।

 

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আশরাফুল আলম বলেন, তাঁরা অনুমতি ছাড়া অন্যের জমি থেকে মাটি নিয়ে রাস্তা ভরাটের কাজ করছিলেন। তাই তাঁদের রাস্তার কাজ বন্ধ করতে বলা হয়েছে। তিনি আর এ বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি।

 

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আবু জাফর বলেন, অভিযোগটি গুরুতর ও জনস্বার্থ-সংশ্লিষ্ট। সবকিছু খতিয়ে দেখার পর অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে দায়ীর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone