শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে ক্ষতিকারক ইউক্যালিপটাস গাছ ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে লালমনিরহাটের বটতলার সড়কবাতি জ্বলে না! লালমনিরহাটের প্রাচীন বটগাছটি হেলে যাচ্ছে! লালমনিরহাটে ব্যবসায়ীর টাকা ছিনতাই চেষ্টা; ২ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার! লালমনিরহাট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতিকে অব্যাহতি লালমনিরহাট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির বিরুদ্ধে গরু ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে ২লাখ ৪০হাজর টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগ! উপকারভোগীর কাছ থেকে মাইক্রোফোন কেড়ে নেওয়ায় ক্ষেপে গেলেন প্রধানমন্ত্রী! লালমনিরহাটে সিজেজি সদস্যদের সাথে নেটওয়ার্কিং মিটিং অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ হস্তান্তর কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটের ঐতিহ্যবাহী মোগলহাট জিরো পয়েন্ট এখন শুধুই স্মৃতি : দর্শনার্থীদের ভিড়
প্রকৃতি থেকে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে বেল গাছ

প্রকৃতি থেকে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে বেল গাছ

আলোর মনি ডটকম ডেস্ক রিপোর্ট: লালমনিরহাটে প্রকৃতি থেকে ক্রমেই হারিয়ে যেতে বসেছে বেল গাছ। সু-স্বাদু ফল ও ভেষজগুণ সম্পন্ন বেল গাছ আগে বাসা-বাড়ির পরিত্যাক্ত কোন জায়গায়, রাস্তার ধারে, পথে প্রান্তরে আপনা-আপনি ভাবে জন্মাতে দেখা যেত। আপনা-আপনি অবহেলা আর অনাদরে জন্মায় বলে বেল-এর গুরুত্বটা আমাদের কাছে তেমন ভাবে নেই বললেই চলে। অথচ দেশীয় প্রজাতির এই বেল গাছটির ফল অত্যান্ত সু-স্বাদু ও বেল গাছ আমাদের অনেক উপকারে আসে। সেই প্রাচীন কাল হতে এর ফল, পাতাসহ বেল গাছটিই আমাদের নানা রোগের মহাষৌধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এর গুনাগুণ আমরা সবাই জানি ও বুঝি। এত কিছু জানা ও বুঝার পরেও শুধুমাত্র অনাদরে আর অবহেলার কারনেই প্রকৃতি হতে হারিয়ে যেতে বসেছে এই মহামূল্যবান বেল গাছটি। প্রকৃতির এই অমূল্য সম্পদটিকে আমরা নির্বিচারে কেটে শেষ করে ফেলছি। আমরা সবাই জানি, প্রকৃতি সব সময় মানুষকে বুকে আগলে রাখার পাশাপাশি তার সবটুকু উজাড় করে দেয়। কখনও কোনদিন নিজেকে বিলিয়ে দিতে বিন্দু মাত্র কার্পন্য করে না। আর আমরা প্রকৃতির এই অমূল্য সম্পদগুলোকে সব সময় নিজের মত করে ব্যবহার করেই চলছি। নিজেদের প্রয়োজনে ব্যবহার্য এই মহামূল্যবান সম্পদকে রক্ষা করার তাগিদ অনুভব করছিনা কখনও। আর অনুভব করছিনা বলেই মহামূল্যবান সম্পদগুলো আজ প্রকৃতি হতে হারিয়ে যাচ্ছে।

 

শুধুমাত্র অবহেলা আর অনাদরে আপনা-আপনি বেড়ে ওঠা মহামূল্যবান উদ্ভিদগুলোর আজ অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে। এই মূল্যবান উদ্ভিদগুলোর অস্তিত্ব সংকটের মূল কারণ; জ্বালানী সমস্যার কারণে নির্বিচারে কেটে ফেলে ধ্বংস করা হচ্ছে। আর এভাবেই প্রকৃতি হতে হারিয়ে যাচ্ছে এই মূল্যবান উদ্ভিদগুলো। এরই মধ্যে অসংখ্য উদ্ভিদ হারিয়ে গেছে। বর্তমানে হারিয়ে যাওয়ার তালিকায় রয়েছে বেল গাছ।

 

আগে বাংলাদেশের সব অঞ্চলে বেল নামক গাছটির দেখা মিললেও বর্তমানে আর চোখেই পড়ে না।

 

সরেজমিনে ঘুরে অনেক খোঁজাখুঁজির পর বেল গাছ নামক গাছটির দেখা মেলে লালমনিরহাট জেলার লালমনিরহাট সদর উপজেলার মোগলহাট ইউনিয়নের ফুলগাছ গ্রামে। কাছে গিয়ে দেখা যায়; বিলুপ্তপ্রায় ভেষজগুণ সম্পন্ন বেল নামক গাছটি তার অস্তিত্ব জানান দিয়ে বলছে, এখনও আমার অস্তিত্ব শেষ হয়ে যায়নি, তবে আমি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে, পারলে আমাকে রক্ষা করো।

 

বেলের বৈজ্ঞানিক নাম-এ্যায়িগেল মারমিলস, গোত্রের নাম-রুটাসি।

 

ফুলগাছ গ্রামের হযরত আলী বলেন, ছোট বেলা হতে দেখছি আমাদের এলাকায় অনেক বেল গাছ ছিল। তবে এখন আর তেমন ভাবে চোখে পড়ে না। আগে আমরা গরমের দিনে পাকা বেল দিয়ে শরবত তৈরি করে খেতাম।

 

গ্রাম্য কবিরাজ কাশেম আলী বলেন, বেল গাছ মানুষের অনেক উপকারে আসে। বিশেষ করে পুরুষদের দুর্বল পুরুষাঙ্গ সবল ও সতেজ করতে বেলের জুড়ি নেই। ছাত্র-ছাত্রীদের স্মরণ শক্তি বৃদ্ধিতে বেল পাতা ঘিয়ে ভেঁজে খাওয়ালে অনেক উপকার হয়। এক চা চামচ বেল পাতার রস খেলে জ্বর সর্দি ভাল হয়ে যায়।

 

হরিপদ রায় হরি বলেন, আমাদের হিন্দু ধর্মীয় মতে, বেল একটি পবিত্র গাছ। বেল পাতা ছাড়া পূজা সম্পন্ন হয় না।

 

কবি কমল কান্তি বর্মণ বলেন, আমাদের নিজেদের স্বার্থে দেশীয় প্রজাতির এই পবিত্র গাছটিকে আমাদের রক্ষা করতে হবে।

 

কবি ও সাংবাদিক হেলাল হোসেন কবির বলেন, আগে বেল গাছ প্রচুর পরিমানে যেখানে সেখানে দেখা গেলেও বর্তমানে এ গাছটি খুব কম চোখে পড়ছে। গাছটি মানুষের অনেক কাজে লাগে। দেশীয় প্রজাতির এ গাছটিকে আমাদের প্রয়োজনেই রক্ষা (সংরক্ষণ) করতে হবে। তা না হলে ভবিষ্যত প্রজন্ম জানতেই পারবে না বেল গাছের নাম।

 

ফুলগাছ ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা সেলিম বলেন, বেল গাছ নামক উপকারী গাছটি আর চোখে পড়ছে না। দেশীয় প্রজাতির ভেষজগুণ সম্পন্ন এ উদ্ভিদটিকে আমাদের প্রয়োজনেই রক্ষা করতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone