শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে কয়েকদিনের বৃষ্টিপাতে কপাল পুড়ছে মরিচ চাষির! খবর প্রকাশের পর জনস্বার্থে কেটে ফেলা হলো লালমনিরহাটের সেই প্রাচীন বটগাছটির ঝুঁকিপূর্ণ ডাল! লালমনিরহাটের তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ২৫সেন্টিমিটার উপরে! লালমনিরহাটের তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ১৩সেন্টিমিটার উপরে! লালমনিরহাটে বিদ্যুতের সঙ্গে বন্ধ হয় মোবাইল নেটওয়ার্কও; হতাশায় এলাকাবাসী! লালমনিরহাটে খেলাধুলার মাঠে মাটির স্তূপ! লালমনিরহাটে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উদযাপিত দেশবাসীকে সাপ্তাহিক আলোর মনি’র ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা লালমনিরহাটে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা-২০২৪ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে জাতীয় মহাসড়কের ডিভাইডারে ঝুঁকিপূর্ণ বিলবোর্ড স্থাপন!
মহিমা রঞ্জন রায় চৌধুরী-প্রজাবৎসল, শিক্ষানুরাগী এবং সাহিত্য-সংস্কৃতিমনা জমিদার

মহিমা রঞ্জন রায় চৌধুরী-প্রজাবৎসল, শিক্ষানুরাগী এবং সাহিত্য-সংস্কৃতিমনা জমিদার

আলোর মনি ডটকম রিপোর্টার: কাকিনার জমিদার মহিমা রঞ্জন রায় চৌধুরী বগুড়া জেলার কাহালু উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামে ১৮৫৩ খ্রীস্টাব্দের ৩ ফেব্রুয়ারী জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম ছিল রাম কমল মজুমদার এবং মায়ের নাম ছিল শান্তমনি। মহিমা রঞ্জনের আসল নাম ছিল রাধাগোবিন্দ। কাকিনার জমিদার শম্ভুচন্দ্র রায় চৌধুরী ১২৬৩ বঙ্গাব্দের ১৮ কার্তিক তাকে দত্তক গ্রহণ করে নাম রাখেন মহিমা রঞ্জন। ১৮৬৩ খ্রিস্টাব্দের ২২ ডিসেম্বর তিনি জমিদার হিসাবে স্বীকৃত হন। তিনি একজন প্রজাবৎসল, শিক্ষানুরাগী এবং সাহিত্য-সংস্কৃতিমনা জমিদার ছিলেন। ১৮৭৪ সালের ভয়াবহ দুর্ভিক্ষের সময় তিনি জমিদারী খাজনা আদায় বন্ধ রাখেন এবং খাদ্য ও পানীয় জলের ব্যবস্থাকরণসহ কোষাগার থেকে প্রচুর অর্থ দুঃসহ মানুষের মাঝে বিতরণ করেন। তিনি ব্রিটিশ সরকার কর্তৃক ‘রাজা বাহাদুর’ উপাধি লাভ করেন। তিনি নিজে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় খুব বেশি অগ্রসর হতে না পারলেও এ অঞ্চলে শিক্ষা বিস্তারে যথেষ্ট অবদান রেখেছেন। তার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ১৩১২ বঙ্গাব্দের ১১ বৈশাখ গড়ে উঠে ‘রঙ্গপুর সাহিত্য পরিষদ’। তিনি এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও আজীবন সদস্য ছিলেন। ১৯০৯ সালের ১ এপ্রিল তিনি পরলোক গমন করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone