শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
লালমনিরহাট জেলার করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বাড়ছে

লালমনিরহাট জেলার করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বাড়ছে

আলোর মনি ডটকম ডেস্ক রিপোর্ট: লালমনিরহাটে করোনার সংক্রমণ শনাক্তকরণের জন্য নমুনা পরীক্ষার কোনো ল্যাব নেই। পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহের পর তা পাঠাতে হচ্ছে রংপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে। সেখান থেকে নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন আসতে কয়েক দিন সময় লাগে। এই সময় করোনা পজিটিভ হওয়া অনেক ব্যক্তি হাট-বাজারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। নানা প্রয়োজনে পরিবারের সদস্যসহ অনেকের সংস্পর্শে আসছেন। ফলে লালমনিরহাট জেলায় করোনার সংক্রমণ ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

 

গত ২ এপ্রিল নমুনা পরীক্ষা শুরু হয় রংপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে। প্রতিদিন লালমনিরহাট জেলার ৫টি উপজেলা থেকে পাঠানো নমুনা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে জমা হয়। সেগুলো রংপুরে পাঠানো হয়।

 

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসনের তথ্য অনুযায়ী, আজ সোমবার ২২ জুন পর্যন্ত জেলায় ১হাজার ৫শত ৮৭জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে ১হাজার ৩শত ১৭জনের নমুনার ফল পাওয়া গেছে। তন্মধ্যে ৭৬জন আক্রান্ত হয়েছে। ৪৮জন সুস্থ হয়েছে। ১জনের মৃত হয়েছে।

 

লালমনিরহাট সদর উপজেলার ৪শত ৩৮জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ৩শত ৫৪জনের নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। ১৯জন আক্রান্ত হয়েছে। ৯জন সুস্থ হয়েছে।

 

আদিতমারী উপজেলার ১শত ৯৩জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ১শত ৬৭জনের নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। ১৭জন আক্রান্ত হয়েছে। ১৫জন সুস্থ হয়েছে।

 

কালীগঞ্জ উপজেলার ৩শত ৭১জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ৩শত ৪৫জনের নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। ১৪জন আক্রান্ত হয়েছে। ১২জন সুস্থ হয়েছে।

 

হাতীবান্ধা উপজেলার ৩শত ৩২জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ২শত ৮৭জনের নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। ১৪জন আক্রান্ত হয়েছে। ৭জন সুস্থ হয়েছে। ১জন মৃত হয়েছে।

 

পাটগ্রাম উপজেলার ২শত ৫৩জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ১শত ৬৪জনের নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। ১২জন আক্রান্ত হয়েছে। ৫জন সুস্থ হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone