শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে নদী-নালা, খাল-বিলে ধরা পড়ছে না দেশী প্রজাতির মাছ প্রশ্ন ফাঁস কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকায় লালমনিরহাটের আদিতমারীতে আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতিকে বহিষ্কার! লালমনিরহাটে অ্যাড. মোঃ মতিয়ার রহমান এমপির সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত লালমনিরহাট পৌরসভার ২০২৪-২০২৫ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ এর উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামীণ ঐতিহ্য মৃৎ শিল্প লালমনিরহাটে বিজিবি মহাপরিচালক কর্তৃক বন্যাদূর্গতদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে বাঁশশিল্পীরা অন্য পেশায় ঝুঁকছেন লালমনিরহাটে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস-২০২৪ উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে তিস্তা নদী নিয়ে সুচিন্তিত ভাবে কাজ করা হোক!
টানা বৃষ্টিতে ভূট্টা নিয়ে বিপাকে কৃষকেরা

টানা বৃষ্টিতে ভূট্টা নিয়ে বিপাকে কৃষকেরা

আলোর মনি ডটকম ডেস্ক রিপোর্ট: লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলায় উঠতি ভূট্টা নিয়ে কৃষকেরা বিপাকে পড়েছে। কয়েক দিনের টানা বৃষ্টি আর বাতাসে ফলে জমিতে থাকা ভুট্টা গাছগুলো মাটিতে পড়ে রয়েছে। মাড়াই করা ভূট্টা নষ্ট (ফাংগাস) হচ্ছে। অনেক জমিতে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় ভূট্টা নিয়ে চিন্তায় পড়েছে কৃষক। গত শনিবার ১৩ জুন থেকে ৭দিন যাবত রোদের তেমন দেখা মিলছে না। এই আবহাওয়াতে বাধ্য হয়ে  অনেক কৃষকেরা ভূট্টা তুলেছে। রোদের অভাবে চাতালে ভুট্টা (ফাংগাস) নষ্ট হয়েছে।

 

আজ শুক্রবার বিকালে পাটগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দেখা গেছে, বৃষ্টির কারণে অনেক কৃষক জমিতে ভূট্টা রয়েছে। কিছু ভূট্টা তুলে মাড়াই করে চাতালে শুকাতে দিয়েছে কিন্তু কয়েক দিনের টানা বৃষ্টির কারণে তারা ভূট্টা শুকাতে পারছে না। রোদ না থাকায় ভূট্টা (ফাংগাস) নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

 

পাটগ্রাম উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বছর ১২হাজার ৩শত ৪০হেক্টর জমিতে ভূট্টা আবাদ হয়েছে।

 

পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা ইউনিয়নের কৃষক জুলফিকার আলী ভুট্টু ও আবুল হোসেন সরকার জানান, ইতিমধ্যে কিছু জমির ভূট্টা শুকিয়ে ঘরে তুলেছি। গত প্রায় ১ সপ্তাহ ধরে টানা বৃষ্টির কারণে কিছু জমির ভূট্টা তুলতে না পারায় ভূট্টা মাটিতে পড়ে রয়েছে। সেগুলো নষ্ট হচ্ছে। আর রোদ না থাকায় মাড়াই করা ভূট্টা চাতালে নষ্ট হচ্ছে।

 

পাটগ্রাম উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল গাফ্ফার বলেন, কয়েক দিন ধরে বৃষ্টি ও বৈরি আবহাওয়ার কারণে কৃষক ভূট্টা নিয়ে বিপাকে পড়েছে। এ বছর ভূট্টার ফলন ভালো হয়েছে। দাম ভালো থাকায় কৃষকরা লাভবান হবে।

 

এ বিষয়ে কুড়িগ্রাম রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার জানান, বর্তমানে বাংলাদেশে মৌসুমি বায়ু বিস্তার লাভ করেছে। আগামী ৩দিনের মধ্যে এই অবস্থা কেটে যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone