শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
দেশবাসীকে সাপ্তাহিক আলোর মনি’র ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা লালমনিরহাটে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা-২০২৪ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে জাতীয় মহাসড়কের ডিভাইডারে ঝুঁকিপূর্ণ বিলবোর্ড স্থাপন! লালমনিরহাটের সাংবাদিক মোঃ মিজানুর রহমান-এঁর শুভ জন্মদিন পালিত লালমনিরহাটের হযরত শাহ্ কবির (রহঃ) বড়দরগাহ মাজার শরীফ লালমনিরহাটে ছাত্রলীগের সভাপতি ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারের দাবীতে- মানববন্ধন অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটের প্রবেশদ্বার মিশন মোড় গোলচত্ত্বরের ফোয়ারার স্থলে এখন ঘাস লাগানো হয়েছে তোমরা ভবিষ্যৎ জাতি গঠনের কারিগর : সংবর্ধনায় অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু লালমনিরহাটে ক্ষতিকারক ইউক্যালিপটাস গাছ ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে লালমনিরহাটের বটতলার সড়কবাতি জ্বলে না!
লালমনিরহাটে গুলিভর্তি ম্যাগাজিন হারিয়ে এসআই সাময়িক বরখাস্ত

লালমনিরহাটে গুলিভর্তি ম্যাগাজিন হারিয়ে এসআই সাময়িক বরখাস্ত

আলোর মনি ডটকম ডেস্ক রিপোর্ট: লালমনিরহাট সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) খালেকুজ্জামান বাদশাকে গুলিভর্তি ম্যাগাজিন ‘হারিয়ে ফেলায়’ সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

 

আজ বুধবার (২৭ জানুয়ারি) বিকালে লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ-সার্কেল) মারুফা জামাল বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

 

তিনি বলেন, খালেকুজ্জামান বাদশা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে রবিবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে কোনো মামলা ছাড়াই অন্য একটি জেলার অপহরণ সম্পর্কিত জিডি নিয়ে অভিযানে যাওয়ার কারনে লালমনিরহাট সদর থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে এবং ওই ঘটনার পরে তার ম্যাগাজিন হারিয়ে যাওয়ার ঘটনায় মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

 

জানা যায়, গত রবিবার রাতে লালমনিরহাট জেলা শহরের কলেজ বাজার এলাকা থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করতে যান বাদশা। ওই সময় রবিউল নামে এক ব্যক্তিকে উঠিয়ে নিয়ে আসার সময় তার অপরাধ সম্পর্কে জানতে চান এবং গ্রেফতারি ওয়ারেন্টের কাগজ দেখতে চান স্থানীয়রা। তিনি কোনো প্রকার ওয়ারেন্টের কাগজ দেখাতে না পেরে পিস্তল উচিয়ে বলেন, আমি ডিবি পুলিশ যে কোনো সময় আমরা যে কোনো ব্যক্তিকে গ্রেফতার করতে পারি। এই কথা বলার পরপরেই স্থানীয় জনগনের তোপের মুখে পড়েন লালমনিরহাট সদর থানার সাব ইন্সপেক্টর খালেকুজ্জামান বাদশা। অবস্থা বেগতিক দেখে পালিয়ে যান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

 

এ বিষয়ে বাদশা বলেন, রাজশাহী জেলার বাঘা থানার অপহরন সম্পর্কিত একটি সাধারন ডায়েরি করা হয়। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে ওই জেলার একটি মেয়েকে লালমনিরহাটে অপহরণ করা হয়েছে। সেই সূত্র ধরে ঘটনাস্থলে যান খালেকুজ্জামান ব্দাশা। সেখানে পিস্তল উচিয়ে পুলিশ পরিচয় দেওয়ার পর থেকে গুলিভর্তি ম্যাগাজিন খুজে পাচ্ছেন না বলে জানান তিনি।

 

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহা আলম যোগদানের পর থেকে এলাকায় চুরি, মাদক ও বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড বৃদ্ধি পেয়েছে।

 

উল্লেখ্য যে, গত মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) এক পুলিশ সদস্যের পিস্তল চুরি হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone