শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে কয়েকদিনের বৃষ্টিপাতে কপাল পুড়ছে মরিচ চাষির! খবর প্রকাশের পর জনস্বার্থে কেটে ফেলা হলো লালমনিরহাটের সেই প্রাচীন বটগাছটির ঝুঁকিপূর্ণ ডাল! লালমনিরহাটের তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ২৫সেন্টিমিটার উপরে! লালমনিরহাটের তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ১৩সেন্টিমিটার উপরে! লালমনিরহাটে বিদ্যুতের সঙ্গে বন্ধ হয় মোবাইল নেটওয়ার্কও; হতাশায় এলাকাবাসী! লালমনিরহাটে খেলাধুলার মাঠে মাটির স্তূপ! লালমনিরহাটে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উদযাপিত দেশবাসীকে সাপ্তাহিক আলোর মনি’র ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা লালমনিরহাটে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা-২০২৪ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে জাতীয় মহাসড়কের ডিভাইডারে ঝুঁকিপূর্ণ বিলবোর্ড স্থাপন!
লালমনিরহাটে সন্ত্রাসী হামলার সঠিক বিচারের দাবিতে ৪ গ্রামের মানুষের বিক্ষোভ

লালমনিরহাটে সন্ত্রাসী হামলার সঠিক বিচারের দাবিতে ৪ গ্রামের মানুষের বিক্ষোভ

আলোর মনি ডটকম ডেস্ক রিপোর্ট: লালমনিরহাটে ২ সন্তানের জননী মোছাঃ বানু বেগম প্রতিবেশী দেবর রফিকুল ইসলামের সাথে বিয়েতে রাজি না হওয়াকে কেন্দ্র করে লালমনিরহাট সদর উপজেলার হারাটি ইউনিয়নের তালুক চোংগাদ্বারা গ্রামের রফিকুল ইসলামের সাথে বানু বেগমের স্বামী অাজিজুল ইসলামসহ এলাকাবাসী মহুবার রহমান এর সাথে বাক-বিতন্ডার সৃষ্টি হয় এরই জের ধরে গত ১ নভেম্বর রোববার রাত ১টার দিকে রফিকুল ইসলাম শতাধিক সন্ত্রাসীর দল লাঠি, বল্লম, রাম দা নিয়ে বানু বেগমের স্বামীসহ এলাকাবাসীর উপর হামলা চালাতে গেলে একজন গ্রামবাসী মসজিদের মাইকে প্রচার করে দেন গ্রামে ডাকাত ঢুকেছে। এলাকাবাসী মাইকে এমন প্রচার শুনে পুরুষ-মহিলা জড়ো হতে লাগলে উক্ত সন্ত্রাসীর দল পালিয়ে যায়।

 

পালিয়ে যাওয়া সন্ত্রাসীর মূলহোতা একই ইউনিয়নের অাইয়ুব অালীর ছেলে ওবায়দুল ও  খামারপাড়া গ্রামের নুর মোহাম্মদের ছেলে রফিকুল ইসলাম তাদের ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে তালুক চোংগাদারা, খামার গবিন্দ্ররাম, কামালপাড়া, ও ছেকনা পাড়া এই ৪ গ্রামের প্রায় ৫টি পরিবারকে মেরে ফেলার হুমকী অব্যাহত রেখেছে।

 

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে ওই এলাকায় গেলে এলাকাবাসী ছেকনাপাড়া গ্রামের অাজহার অালীর ছেলে নুরুল হক, চোংগাদ্বারা গ্রামের হামেজ উদ্দিনের ছেলে মহুবার রহমান, মৃত্যু হামেজের ছেলে মজর অালী,  হাফেজ উদ্দিনের ছেলে  রাশেদুল, খামারপাড়া গ্রামের করিম উদ্দিনের ছেলে তমিজ উদ্দিন, ছাবেদ অালীর ছেলে শফিকুল, ছেকনাপাড়া গ্রামের শাহানত উল্লাহর ছেলে অাব্দুর রাজ্জাকসহ ৩শতাধিক গ্রামবাসী  সঠিক বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে।

 

এ সময় সাংবাদিকদের জানান, গত ৩১ অক্টোবর থেকে এ যাবত ৪ গ্রামের জনগণ হাট-বাজারে বন্দর শহরে যেতে পারছে না।  এঘটনায় মোছাঃ বানু বেগম ও মহুবার রহমান পৃথক ২টি মামলা মামলা দায়ের করলেও লালমনিরহাট সদর থানা পুলিশ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার না করায় ওবায়দুল ও রফিকুল বেপরোয়া হয়ে রামদা নিয়ে প্রকাশ্য ঘুরে বেড়াচ্ছে।

 

এলাকাবাসীরা জানান, পুলিশ কঠোর ব্যবস্থা না নিলে বড় ধরনের সংঘর্ষের অাশংকা রয়েছে। অসহায় মোছাঃ বানু বেগমকে লম্পট রফিকুল ইসলাম ভয়-ভিতি দেখিয়ে প্রায় ২ মাস থেকে অবৈধ ভাবে মেলা মেশা করে অাসছিল। এক পর্যায়ে এলাকাবাসীর সহযোগীতায় রফিকুলের অবৈধ কাজের প্রতিবাদ করলে লম্পট রফিকুল ইসলাম সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে লিপ্ত হন। তাদের ভয়ে এলাকাবাসী বাড়ি।

 

এ বিষয়ে হারাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  রফিকুল ইসলাম জানান,  উভয় পক্ষের সাথে কথা বলে মিমাংসা করে দেয়ার চেষ্টা চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone