শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও ভাইরালের পর সেই প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুন হুইল চেয়ার পেল

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও ভাইরালের পর সেই প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুন হুইল চেয়ার পেল

জন্ম থেকেই শারিরীক প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুনকে হুইল চেয়ার দিয়েছে জাতীয় শ্রমিক লীগের অন্তর্ভুক্ত সংগঠন বাংলাদেশ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন রেজিঃ নং বি-১৯৬৫।

 

বাংলাদেশ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন রেজিঃ নং বি-১৯৬৫ পক্ষে বুধবার (১৩ মার্চ) বিকাল ৪টা ৩০মিনিটে রংপুর সার্কেলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিপুল কুমার রায় প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুনের বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারের নিকট একটি হুইল চেয়ার তুলে দেন।

 

এ সময় সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার সম্পাদক মোঃ মাসুদ রানা রাশেদ, লালমনিরহাট জেলা কমিটির নুর ইসলাম, রায়হান ইকবাল এবং নায়েব আলীসহস্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

এর আগে, গত ৫ মার্চ লালমনিরহাট জেলার লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের বনগ্রামের শারিরীক প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুনকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া ও অনলাইন এবং প্রিন্ট পত্রিকায় “লালমনিরহাটে একটি হুইল চেয়ারের জন্য প্রতিবন্ধীর আকুতি” শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির সাংবাদিক মাজহারুল ইসলাম বিপু ও সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার সম্পাদক মোঃ মাসুদ রানা রাশেদ। প্রতিবেদন প্রকাশের পর বাংলাদেশ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন রেজিঃ নং বি-১৯৬৫ এর সহ-সম্পাদক মোঃ মোফাজ্জল হোসেন শারীরিক প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুনের জন্য একটি হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করেন।

 

প্রতিবেদনে বলা হয়, শারিরীক প্রতিবন্ধীতা নিয়ে এতোদিন ভিক্ষা বৃত্তি করেই চলতেন। বর্তমানে তিনি শারীরিক ভাবে অক্ষম। পায়ের উপর ভর করে আর চলতে পারছেন না? শারীরিক অক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও জীবন চালাতে বাধ্য হয়েই সুফিয়াকে প্রতিদিন রাস্তায় বের হতে হয়। তিনি লালমনিরহাট সদর উপজেলা বনগ্রাম, কোদালখাতা, ভাটিবাড়ীসহ কিছু কিছু এলাকায় ঘুরে ঘুরে ভিক্ষা করেন। একাজে তাকে সহায়তা করেন আর এক ভিক্ষুক। কিন্তু সুফিয়া আগের মতো হাটতে না পারায় তাকে আর সঙ্গে নিতে পারেন না তিনি।

 

শারিরীক প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুনের বাবা বনগ্রাম গ্রামের মৃত্য সোবাহান মারা গেছেন বহু বছর আগে। ৩ বোন ও ১ ভাই মধ্যে সুফিয়া খাতুন তৃতীয়। বাবার মৃত্যুর পর থেকে সুফিয়া খাতুন অন্যের বাড়িতে বাড়িতে ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন।

 

হুইল চেয়ার পেয়ে অনেক খুশি হয়েছে সুফিয়া খাতুনের পরিবার।

 

শারীরিক প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুনের ভাই কছিমুদ্দিন বলেন, আমার বোনের যাতায়াত করতে অনেক কষ্ট হতো। এই হুইল চেয়ার আমার বোনের কষ্ট দূর করবে এবং চলাচলে সাহায্য করবে। আমরা অনেক খুশি যে আমাদের পাশে কেউ দাঁড়িয়েছে।

 

বাংলাদেশ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন রেজিঃ নং বি-১৯৬৫ এর সহ-সম্পাদক মোঃ মোফাজ্জল হোসেন জানান, জাতীয় শ্রমিক লীগের অন্তর্ভুক্ত সংগঠন বাংলাদেশ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন রেজিঃ নং বি-১৯৬৫ এর উদ্যোগে রংপুর সার্কেল কমিটির অর্থায়নে লালমনিরহাট জেলা কমিটির সহযোগিতায় এই শারিরীক প্রতিবন্ধীর জন্য একটি হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রতিবন্ধী হওয়ায় প্রতিবন্ধী বৃদ্ধার জন্য উন্নত মানের হুইল চেয়ার ঢাকা থেকে ক্রয় করে রংপুর সার্কেলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিপুল কুমার রায় এর মাধ্যমে তার বাড়িতে গিয়ে এ হুইল চেয়ার পৌঁছে দিয়েছেন।

 

প্রসঙ্গত, শারীরিক প্রতিবন্ধী সুফিয়া খাতুন অসুস্থ জনিত কারণে চিকিৎসাধীন থাকায় তাঁর পরিবারের নিকট এ হুইল চেয়ারটি হস্তান্তর করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone