শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে কয়েকদিনের বৃষ্টিপাতে কপাল পুড়ছে মরিচ চাষির! খবর প্রকাশের পর জনস্বার্থে কেটে ফেলা হলো লালমনিরহাটের সেই প্রাচীন বটগাছটির ঝুঁকিপূর্ণ ডাল! লালমনিরহাটের তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ২৫সেন্টিমিটার উপরে! লালমনিরহাটের তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ১৩সেন্টিমিটার উপরে! লালমনিরহাটে বিদ্যুতের সঙ্গে বন্ধ হয় মোবাইল নেটওয়ার্কও; হতাশায় এলাকাবাসী! লালমনিরহাটে খেলাধুলার মাঠে মাটির স্তূপ! লালমনিরহাটে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উদযাপিত দেশবাসীকে সাপ্তাহিক আলোর মনি’র ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা লালমনিরহাটে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা-২০২৪ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে জাতীয় মহাসড়কের ডিভাইডারে ঝুঁকিপূর্ণ বিলবোর্ড স্থাপন!
করোনা টেষ্টের সংখ্যা বৃদ্ধি ও পিসিআর ল্যাব স্থাপনে পদক্ষেপ নেয়া হবে-সচিব মেসবাহুল ইসলাম

করোনা টেষ্টের সংখ্যা বৃদ্ধি ও পিসিআর ল্যাব স্থাপনে পদক্ষেপ নেয়া হবে-সচিব মেসবাহুল ইসলাম

আলোর মনি ডটকম ডেস্ক রিপোর্ট: করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে লালমনিরহাট জেলার দায়িত্ব প্রাপ্ত পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মেসবাহুল ইসলাম আজ বৃহস্পতিবার ২৫ জুন লালমনিরহাট জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সাথে এক মতবিনিময় করেন।

 

এ মতবিনিময় সভার শুরুতে লালমনিরহাট জেলা জজশীপের নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইবুনালের বিচারক জেলা জজ মরহুম ফেরদৌস আহমেদ এর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ, শোক সন্তোপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন ও বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

 

পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মেসবাহুল ইসলাম লালমনিরহাটে স্বচ্ছভাবে ত্রাণ বিতরণ ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি কর্মকর্তাদের ভূমিকার প্রশংসা করেন।

 

তিনি আরও বলেন, জেলায় করোনা টেষ্টের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং দ্রুত ফলাফল প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব স্থাপনে সরকার কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

 

জেলা প্রশাসক আবু জাফর ত্রাণ কার্যক্রম ও করোনা বিষয়ে সার্বিক তথ্য উপস্থাপন কালে বলেন, জেলায় মোট ৮৪জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে তন্মধ্যে ৫১জন সুস্থ্য হয়েছে এবং ১জন মৃত্যু বরণ করেছেন। জেলায় করোনা সন্দেহে ১হাজার ৭শত ৭জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে তন্মধ্যে ১হাজার ৩শত ৯১টি ফলাফল পাওয়া গেছে। কর্মহীন হয়ে পড়া ১লাখ ৫৮হাজার ৫শত ১১টি পরিবারের মাঝে ১হাজার ৫শ ৮৭মেট্টিকটন জিআর চাল এবং নগদ ৭৬লাখ ৪৯হাজার ৪শত ৪৫টাকা প্রদান করা হয়েছে।

 

পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা বলেন, জেলায় করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি না মানার প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। কোন বিষয় সম্পর্কে সুস্পষ্ট কিছু না জানার পূর্বেই শহরের মিশন মোড়ে মানববন্ধন, অনশনসহ নানাবিধ কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে। এতে স্বাস্থ্য বিধি মানা হচ্ছে না, করোনার কারণে কাজ না থাকায় পারিবারিক সহিংসতা, নারী ও শিশু নির্যাতন, জুয়া, মাদক সেবনসহ অন্যান্য অপরাধ বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষতঃ লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার লোহাকুচি ও জাওরানী সীমান্তে মাদক ও গাজা সেবীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। মাদক ও গাজা সেবীদের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে বিজিবির বিশেষ সহায়তা প্রয়োজন।

 

তিনি আরও বলেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে জেলা পুলিশ জেলায় প্রায় ২হাজার বৃক্ষ রোপনের এক কর্মসূচী হাতে নিয়েছেন।

 

সিভিল সার্জন ডাঃ নির্মলেন্দু রায় বলেন, বর্তমানে কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের ফলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমতাবস্থায় কোন ব্যক্তির শ্বাসকষ্ট, গলা ব্যাথা, জ্বর, সর্দি ও কাশি দেখা দিলে তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করতে হবে।

 

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সাইদুর রহমান বলেন, আসন্ন কোরবানী ঈদের জন্য জেলায় ১লাখ ১১হাজার গবাদি পশু প্রস্তুত রাখা হয়েছে। গত বছর জেলায় পালনকৃত ৫৫হাজার গবাদি পশু কোরবানী দেয়া হয়েছিল। তাই সীমান্তে গরু চোরাচালান প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার উপরও গুরুত্ব আরোপ করা হয়।

 

এ মতবিনিময় সভায় লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার জন্য পিসিআর মেশিন স্থাপন ও লোকবল বৃদ্ধির জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়। প্রতিটি মানুষ যাতে মাস্ক ব্যবহার, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হ্যান্ড ওয়াস কিংবা সাবান ব্যবহার করে হাত ধোয়া নিশ্চিত করার জন্য সচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি মোবাইলকোর্ট পরিচালনা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এই বিষয়ে জনগণকে অনুপ্রাণিত করতে হবে। এ ব্যাপারে জন প্রতিনিধি, মসজিদের ঈমাম ও সমাজকর্মীদের আরও তৎপর হওয়ার আহবান জানানো হয়।

এ ছাড়াও লালমনিরহাট জেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত তিস্তা ও ধরলা নদীর ভাঙ্গণ প্রতিরোধে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীকে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়। হাট-বাজার, দোকান পাটে, হোটেল-রেষ্টুরেন্টে ও অন্যান্য জন সমাবেশে স্বাস্থ্যবিধি অর্থাৎ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে জেলাবাসীর প্রতি আহবান জানানো হয়।

 

মতবিনিময় সভায় কৃষি পণ্য ও মৎস্য উৎপাদন এবং হাস-মুরগী ও পশু পালনের উপর সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হয়। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশনা দেয়া হয়। সভায় গবাদি পশুর ল্যাম্পি রোগ প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার প্রতি আহবান জানানো হয়েছে।

 

উক্ত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন ১০০শয্যা বিশিষ্ট লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ সিরাজুল ইসলাম, লালমনিরহাট পৌরসভার মেয়র রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু, মেজর রেজা-ই-রাব্বি, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শামীম আশরাফ, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এ এস এম রাসেল, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সাইদুর রহমান প্রমুখ।

 

এ মতবিনিময় সভা চলাকালীন সময়ে পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মেসবাহুল ইসলাম ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে জেলার ৫টি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাদের নিকট থেকে উপজেলার করোনা পরিস্থিতি, ত্রাণ বিতরণসহ বিভিন্ন সমস্যাবলী নিয়ে আলোচনা করেন।

 

এ সময় করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য, সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone