শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে হাতী-ঘোড়া সাজিয়ে ওয়ালটনের বর্ণাঢ্য র‌্যালি লালমনিরহাটে ১৫ মিটার দৈর্ঘ্যের ৩টি গার্ডার ব্রীজ নির্মাণ শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে সর্বজনীন পেনশন মেলা ২০২৪ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটের নিরীহ স্যানেটারী মিস্ত্রী মোঃ জিয়াউর রহমানকে মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ! অভ্যন্তরীণ বোরো ধান ও চাল সংগ্রহ ২০২৪ শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ টিআর প্রকল্পের নগদ টাকা বিতরণ অনুষ্ঠিত লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগে দেশের প্রথম ইঞ্জিন ও কোচ ঘুরানো টার্ন টেবিল নির্মাণ লালমনিরহাটের ঐতিহ্যবাহী সুকান দীঘিতে পদ্মফুল ফুটেছে লালমনিরহাটের ৩টি উপজেলায় স্বতন্ত্র পদপ্রার্থীদের লড়াই! লালমনিরহাটে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে পুতি রাণীর মৃত্যু
আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্যাকমোর নানা অনিয়ম তদন্তে কমিটি গঠন

আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্যাকমোর নানা অনিয়ম তদন্তে কমিটি গঠন

আলোর মনি রিপোর্ট: লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (স্যাকমো) ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম নিয়ে ৩সদস্যের তদন্ত টিম মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করেছেন।

 

আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মনসুর উদ্দিন বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।

 

জানা গেছে, উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (স্যাকমো) ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে গণ পিটিশন করে কয়েকটি ভুক্তভোগী পরিবার। তারা রোগীকে ভুল চিকিৎসা, সিন্ডিকেট তৈরি, সরকারি ঔষধ বাইরে পাচারসহ নানা দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

 

উল্লেখ্য যে, স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন আদিতমারী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে প্রধান করে ৩সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করেছেন বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) বিকেলে। এই তদন্তটিম রোববার (১ আগস্ট) সরকারি কর্ম দিবসে কাজ শুরু করেছে। প্রধান অভিযোগকারী মমিনুল ইসলাম নামের একজন ভুক্তভোগী। গণ স্বাক্ষরিত আবেদনটি আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে করা হয়। এদিকে ২০১৬ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর এই স্যাকমো ওমর ফারুকের নিজের প্যাথলজিতে সরকারি ঔষধ রাখা ও রোগীকে ভুল চিকিৎসার অভিযোগ উঠলে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান করে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আকতারুন নেছা স্যাকমো ওমর ফারুককে ১বছরের কারাদন্ড দেয় কিন্তু সাজা খেটে রহস্যজনক কারণে পূনঃরায় একই পদে যোগদান করে। তার অপতৎপরতা বা কর্ম থেমে নেই। বরং তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা।

 

আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তৌফিক আহম্মেদ  সাংবাদিকদের জানান, ইউএনও’র কাছে অভিযোগ ও তদন্তের বিষয়টি লিখিত ভাবে কেউ তাঁকে জানাননি। ভ্রাম্যমান আদালতে সাজার বিষয়টি সম্পর্কে নতিপত্র পেলে আইনগত পদক্ষেপ নিবেন।

 

আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মনসুর উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, বিষয়গুলো তদন্ত করে সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের সুপারিশ করে রিপোর্ট স্বাস্থ্য বিভাগে পাঠানো হবে। তিন কার্য দিবসের মধ্যে রিপোর্ট দাখিল করতে বলা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone