শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে বৈষম্যমূলক কোটা ব্যবস্থার সংস্কারের যৌক্তিক দাবীতে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দের বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি! ভারতের সিকিম রাজ্যের প্রাক্তণ শিক্ষা মন্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার! লালমনিরহাটে ২ ছাত্রলীগের নেতার পদত্যাগ! লালমনিরহাটে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সন্তান কমান্ডের মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদান লালমনিরহাটে পবিত্র আশুরার প্রস্তুতি চলছে লালমনিরহাটের পাটগ্রামে জমি জবর দখলের চেষ্টায় থানায় অভিযোগ! লালমনিরহাটে জেলা প্রেস ক্লাব লালমনিরহাট এর কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে জেলা ট্রাক, ট্যাংকলড়ী ও কাভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সম্পাদকে বহিস্কার! লালমনিরহাটে বিএসটিআই এর মোবাইল কোর্টের অভিযানে ৩৫হাজার টাকা জরিমানা
পানি নিষ্কাশনের ড্রেন বন্ধ : ৪০টি পরিবার পানি বন্ধী

পানি নিষ্কাশনের ড্রেন বন্ধ : ৪০টি পরিবার পানি বন্ধী

আলোর মনি ডটকম ডেস্ক রিপোর্ট: লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলা অডিটরিয়াম হল সংলগ্ন এলাকায় প্রভাবশালী ব্যক্তি পানি নিষ্কাশনের সরকারি ড্রেন বন্ধ করে দেওয়ায় ৪০টি পরিবার গত ১মাস থেকে পানি বন্দি হয়ে রয়েছে।

 

হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেও সুফল মেলেনি। ফলে জনগণের দূর্ভোগ বাড়ছে। এসব পরিবারে ৮০/৯০বছর বয়সের পুরুষ মহিলা, প্রতিবন্ধী ও পঙ্গুসহ গৃহপালিত পশু, হাঁস-মুরগী নিয়ে সীমাহীন দূর্ভোগের শিকার।

 

জানা গেছে, হাতীবান্ধা উপজেলার প্রাণকেন্দ্র অডিটরিয়াম হল সংলগ্ন এলাকায় টিএনটি অফিস হয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদ যোগাযোগের একমাত্র পাকা আঞ্চলিক সড়কের একটি রিং কালভাট স্থাপন করে পানি নিষ্কাশনের জন্য প্রায় ১৫বছর পূর্বে বিভিন্ন মালিকানা জমির উপরে কোথাও পাকা কোথাও কাঁচা একটি সরকারি ড্রেন নির্মাণ করা হয়। যাহা দীর্ঘদিন যাবত পানি নিষ্কাশন হয়ে আসেছিল। এমতাবস্থায় চলতি বর্ষা মৌসুমে রিং কালভাট সংলগ্ন ব্যক্তি মালিকানা জমির মালিক প্রভাবশালী রবিউল ইসলাম ও সমবায় অফিসের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মোস্তাকিন রিং কালভাট ও ড্রেনটির মুখ বন্ধ করে দেন। ফলে বর্ষা মৌসুমের শুরু থেকে দীর্ঘ ১মাস থেকে ৪০টি পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। প্রত্যেকটি বাড়িতে জমে আছে পানি যা নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা নেই। সম্প্রতি হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ করলেও রবিউল ইসলাম প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়ায় রহস্যজনক কারনে কোন সুফল পাওয়া যায়নি বলে এলাকাবাসী আঃ সামাদ, আবু বক্কর, শরিফ আহম্মেদ, মিল্টন, জাহিদ হোসেন, হামিদুল ও তসলিম উদ্দিন জানান।

 

হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল আমিন অভিযোগের কথা স্বীকার করে বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone