শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
কৃষক লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে উপজেলা চেয়ারম্যান ৭, ভাইস চেয়ারম্যান ১০, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ৬জন বৈধভাবে মনোনীত প্রার্থী; ১জন চেয়ারম্যানের মনোনয়নপত্র বাতিল! প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনী ২০২৪ শুভ উদ্বোধন এবং আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত মানবিক সহায়তা (ঢেউটিন ও টাকা) বিতরণ অনুষ্ঠিত এমদাদুল সিন্ডিকেটের এক সদস্য গ্রেফতার! সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে সাবেক ইউপি সদস্য গুলিবিদ্ধ লালমনিরহাটের ২টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৮জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১০জন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ লালমনিরহাটের শখের বাজার সড়কের পথচারীরা, কর্তৃপক্ষ নির্বিকার লালমনিরহাটে বিলুপ্তির পথে ঘুঘু পাখি! একুশ বছর
সেই প্রধান শিক্ষকের অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত শুরু

সেই প্রধান শিক্ষকের অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত শুরু

নানা জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে সেই প্রধান শিক্ষক এর বিষয়ে তদন্তে নেমেছেন লালমনিরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।

 

জানা যায়, লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের চর খাটামারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের লোহার বেঞ্চ ও চেয়ারসহ মূল্যবান আসবাবপত্র গোপনে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে, ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

 

উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস ছামাদ গত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ইং তারিখে বিকেলে সিট ব্রেঞ্চ, টিন এবং সিলিং ফ্যান বিক্রি করে নিজেদের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা করে নেয়।

 

এমনকি বিদ্যালয়ের ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিদ্যালয় ফাঁকি ও ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তি টাকা নিজের মোবাইলে নেওয়াসহ আরও বেশ কিছু অভিযোগ উঠেছে।

 

এসব বিষয় গত ৮ জানুয়ারি লালমনিরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের বরাবরে লিখিত আবেদন করেন চর খাটামারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির ৪সদস্য।

 

ওই লিখিত আবেদনের ভিত্তিতে লালমনিরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ১৩ ফেব্রুয়ারি এক তদন্ত কমিটি গঠন করে ৭ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেন।

 

রোববার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় সময় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ে উপস্থিত লালমনিরহাট সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ তাজুল ইসলাম মন্ডল বিদ্যালয়ে অভিযোগের ব্যাপারে তদন্ত চলমান রেখেছেন।

 

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, তদন্ত চলমান রেখেছি, অভিযোগকারির বাহিরের তিনজনের কথা শুনেছি, যদি তদন্তের স্বার্থে সময় লাগে আলোচনা করে এক-দুদিন বাড়িয়ে নেওয়া হবে, তদন্ত শেষে সবকিছু পরিস্কার করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone