শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটের তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ১৩সেন্টিমিটার উপরে! লালমনিরহাটে বিদ্যুতের সঙ্গে বন্ধ হয় মোবাইল নেটওয়ার্কও; হতাশায় এলাকাবাসী! লালমনিরহাটে খেলাধুলার মাঠে মাটির স্তূপ! লালমনিরহাটে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উদযাপিত দেশবাসীকে সাপ্তাহিক আলোর মনি’র ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা লালমনিরহাটে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা-২০২৪ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে জাতীয় মহাসড়কের ডিভাইডারে ঝুঁকিপূর্ণ বিলবোর্ড স্থাপন! লালমনিরহাটের সাংবাদিক মোঃ মিজানুর রহমান-এঁর শুভ জন্মদিন পালিত লালমনিরহাটের হযরত শাহ্ কবির (রহঃ) বড়দরগাহ মাজার শরীফ লালমনিরহাটে ছাত্রলীগের সভাপতি ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারের দাবীতে- মানববন্ধন অনুষ্ঠিত
নতুন চাউল হাট-বাজারে উঠলেও কমেনি দাম

নতুন চাউল হাট-বাজারে উঠলেও কমেনি দাম

আলোর মনি রিপোর্ট: লালমনিরহাটের হাট-বাজারে নতুন চাউল উঠতে শুরু করলেও দাম কমেনি। বাজার দর অপরিবর্তিত থাকায় হতাশা প্রকাশ করেছেন সাধারণ ভোক্তারা। আগের দামেই চাউল বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন খোদ ব্যবসায়ীরা।

 

লালমনিরহাট জেলার হাট-বাজার ঘুরে জানা গেছে, ভারত থেকে আমদানি করা ২৫কেজি ওজনের প্রতি বস্তা চাউল ১হাজার ১শত ২৫টাকা ও নতুন চাউল ৫০কেজি ওজনের প্রতি বস্তা ২হাজার ১শত টাকা বিক্রি হচ্ছে।

 

লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার খুচরা চাউল বিক্রেতা সাইফুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, নতুন চাউল এখনও সেভাবে বাজারে ওঠেনি, তাই চাউলের দাম এখনও কমেনি। নতুন চাউল বাজারে আরও বেশি উঠলে দাম কমতে পারে।

 

লালমনিরহাটের চাউল ব্যবসায়ী মোসলেম দেওয়ান সাংবাদিকদের বলেন, ভারতের আমদানি করা চাউল ২৫কেজি ওজনের প্রতি বস্তা ১হাজার ১শত ২৫টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ চাউল কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৪৫টাকায়। দেশীয় চিকন স্বর্ণা চাউল ৫০কেজি ওজনের প্রতি বস্তা ২হাজার ৪শত ৫০ ও মোটা চাউল ২হাজার ১শত ৫০টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

 

তিনি আরও জানান, নতুন ধানের মোটা চাউল ৫০কেজি ওজনের প্রতি বস্তা ২হাজার ১শত টাকা ও চিকন চাউল ২হাজার ৪শত টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এতে প্রতি কেজি চাউলের দাম পড়ছে যথাক্রমে ৪২টাকা ও ৪৮টাকা।

 

লালমনিরহাট সদর উপজেলার মেসার্স ভাই ভাই রাইস এজেন্সির প্রোঃ আব্দুল লতিফ সাংবাদিকদের বলেন, ভারত থেকে চাউল আমদানির তেমন সুযোগ পাননি এ জেলার বড় চাউল ব্যবসায়ীরা। চাউল আমদানির বৈষম্য কমিয়ে আনা গেলে বাজারে চাউলের দাম কেজিতে ২ থেকে ৩টাকা কমবে।

 

লালমনিরহাট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আব্দুল হামিদ বাবু সাংবাদিকদের বলেন, ২৫হাজার টন চাউল আমদানির অনুমতির জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু প্রথম দফায় ১হাজার টন ও দ্বিতীয় দফায় ১হাজার টন চাউল আমদানির অনুমতি পেয়েছি। নতুন চাউল বাজারে এলে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

 

তিনি আরও বলেন, অন্যান্য জেলার মতো চাউল আমদানির সুযোগ পেলে হয়তো রংপুর অঞ্চলে চাউলের বাজার অস্থিতিশীল হওয়ার সুযোগ থাকত না। আগামীতে এসব বিষয় মাথায় রেখে চাউল আমদানির বরাদ্দের দাবি জানান তিনি।

 

লালমনিরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শামীম আশরাফ সাংবাদিকদের বলেন, নতুন ধান কেবল উঠতে শুরু হয়েছে। এক সপ্তাহ পর পর্যাপ্ত ধান-চাউল বাজারে সরবরাহ হলে হয়তো চাউলের দাম কিছুটা কমতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone