শুক্রবার, ০২ জুন ২০২৩, ০৫:২১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কিন্ডার হিল্পস্ ওর্য়্যাক সংস্থার স্পন্সরপ্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে উপহার বিতরণ অনুষ্ঠিত বিডি হেডলাইন্স ২৪ ডট কম এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত বিশ্ব দুগ্ধ দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালী, আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত শহীদ জিয়াউর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী পালিত বসতবাড়ির আঙ্গিনায় ফুটেছে দৃষ্টিনন্দন ফুল বাগান বিলাস! অযত্ন আর অবহেলায় তালগাছ এখন নিশ্চিহ্ন! জেলা শিল্পকলা একাডেমির জন্য ডিসি পার্কে প্রয়োজনীয় পরিমাণ জমি বরাদ্দের আবেদনপত্র! জারুল ফুলের মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে সুপারি বাগানে সাথী ফসল চাষে বাড়তি আয়! গ্রামীণ খেলাধূলা আজ প্রায় বিলুপ্তির পথে

তিস্তা ব্যারেজ

আলোর মনি রিপোর্ট
  • প্রকাশের তারিখ : মঙ্গলবার, ২৩ জুন, ২০২০
  • ১৫৭ বার পড়া হয়েছে

আলোর মনি ডটকম রিপোর্ট: তিস্তা ব্যারেজ (Teesta Barrage) বা তিস্তা সেচ প্রকল্প বাংলাদেশের সবচেয়ে বৃহত্তম সেচ প্রকল্প। তিস্তা নদীর উপর নির্মিত তিস্তা ব্যারেজের একপাশে আছে লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলাধীন গড্ডিমারী ইউনিয়নের দোয়ানী গ্রাম এবং অন্য পাশে আছে নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলাধীন খালিসা চাপানী ইউনিয়নের ডালিয়া নামক স্থান। রংপুর, দিনাজপুর, নীলফামারী ও বগুড়া জেলার অনাবাদী জমিতে সেচ সুবিধা প্রদানের জন্য ১৯৩৭খ্রিষ্টাব্দে তৎকালীন সরকার তিস্তা ব্যারেজ তৈরীর পরিকল্পনা গ্রহণ করে। পরবর্তীতে ১৯৭৯ সালে ৬১৫মিটার দৈর্ঘ্যের ৪৪রেডিয়াল গেট বিশিষ্ট ব্যারেজের নির্মাণ কাজ শুরু হয়, যা ১৯৯০ সালে শেষ হয়।

 

তিস্তা ব্যারেজের নদীর দুই পাশে গড়ে তোলা হয়েছে সবুজ বেষ্টনি। এছাড়াও ব্যারেজ এলাকায় রয়েছে কয়েকটি পিকনিক স্পট। ব্যারেজের কালো পিচের রাস্তা ধরে ছুটে চলা কিংবা চারপাশের পরিবেশের মনভোলানো সৌন্দর্য্য এখানে আগত দর্শনার্থীদের এক অলৌকিক মায়ায় কাছে টানে।

 

কিভাবে যাবেন : রাজধানী ঢাকা কিংবা অন্য শহর থেকে তিস্তা ব্যারেজ যেতে চাইলে আপনার সুবিধা মত নীলফামারী অথবা লালমনিরহাট জেলায় চলে যান। নীলফামারী থেকে তিস্তা পাড়ে যাওয়ার জন্য রিক্সা, স্কুটার এবং মোটরসাইকেল ভাড়ায় পাবেন।

এ বিভাগের আরো সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102