শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
আতঙ্ক ও মাইক টানাটানি’র মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে সম্মেলন

আতঙ্ক ও মাইক টানাটানি’র মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে সম্মেলন

ত্যাগ, আতঙ্ক আর আলোচনা মঞ্চে মাইকে উপস্থাপনার টানাটানি’র মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন।
গত ২২ সেপ্টেম্বর বিকালে কালীগঞ্জ করিম উদ্দিন পাবলিক পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ ঘটনা ঘটে।
কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে সফল করতে নেতারা ত্যাগ স্বীকার করে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে হাজির হয়ে দিন রাত এক করে মানুষের উপস্থিতি বাড়াতে উঠান বৈঠক করেন।
তারই ধারাবাহিকতায় সম্মেলন চলাকালীন বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকজন হাজির হতে থাকে। কিন্তু হাজির হয়ে কমবেশী সকলের মাঝে সারাক্ষণ আতঙ্ক বিরাজ করছিল। কেননা, সম্মেলন চলাকালীন সময়ে আকাশে বেশ কয়েকটি বিকট শব্দে ড্রোন উড়তে থাকে। আর  সেই অনুষ্ঠানে দর্শক হিসাবে হাজির হওয়া বেশি ভাগ মানুষ এই ড্রোনের সাথে পরিচিত নন। তাই তারা বক্তাগণের আলোচনা শুনার চেয়ে নীরব আতঙ্কে ছিলেন বলে বেশ কিছু ব্যক্তি জানায়।
আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠান পরিচালনায় কোন আওয়ামী লীগের নেতাকে দেখা যায়নি। সেখানে দেখা গেছে আতিদমারী উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা ও কালীগঞ্জের যুবলীগের সভাপতির মাঝে সঞ্চালনা নিয়ে মাইক্রোফোন টাটাটানি করতে। এমনি দেখা গেলে সেই ছাত্রলীগ নেতার পাঞ্জাবি ধরে টানাটানি করতে।  কোন শৃঙ্খলা না থাকায় আলোচনা মঞ্চে খুব বাজে পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছিল। কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনে আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠানে অঙ্গ সংগঠনের নেতাদের দিয়ে পরিচালনার বিষয়ে  আওয়ামী লীগের ভিতর চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।
আকাশে দীর্ঘ সময় ড্রোন উড়াতে গেলে ড্রোন নিবন্ধন ও উড্ডয়ন নীতিমালার সিভিল এ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নেওয়া হয়নি। সবকিছু বিষয় নিয়ে লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।
অপরদিকে দেখা যায় অনুষ্ঠানে উপজেলা নেতাকে স্বাগত বক্তব্য না দিয়ে জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বক্তব্য রাখেন।
মাঠের দর্শক সারিতে দেখা গেছে কালীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মাহবুবুজ্জামান আহমেদ তার লোকজনকে নিয়ে এক দিকে বসে ছিল।  তিনি বলেন, আমাকে দাওয়াত দেওয়া হয়নি বা মঞ্চেও ডাকা হয়নি, বঙ্গবন্ধুর মিটিং, শেখ হাসিনার মিটিং, সেই কারণে আমি কালীগঞ্জ উপজেলাবাসীর পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় নেতাদের সম্মানে প্রায় ৫হাজার লোকজন নিয়ে ছিলাম।
উক্ত সম্মেলনের উদ্বোধক ছিলেন লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহার হোসেন এমপি। প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাহজাহান খান এমপি। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক, কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য অ্যাড. হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, অ্যাড. সফুরা বেগম রুমী, লালমনিরহাট জেলা  আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মতিয়ার রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিবুজ্জামান আহমেদ।
সম্মেলনে প্রথম অধিবেশন শেষে দ্বিতীয় অধিবেশনে কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি ও সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজুকে নির্বাচিত করে কমিটি ঘোষণা করা হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone