শিরোনাম :
সাপ্তাহিক আলোর মনি পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। # সারাবিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ পড়তে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। -ধন্যবাদ।
শিরোনাম :
লালমনিরহাটে নদী-নালা, খাল-বিলে ধরা পড়ছে না দেশী প্রজাতির মাছ প্রশ্ন ফাঁস কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকায় লালমনিরহাটের আদিতমারীতে আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতিকে বহিষ্কার! লালমনিরহাটে অ্যাড. মোঃ মতিয়ার রহমান এমপির সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত লালমনিরহাট পৌরসভার ২০২৪-২০২৫ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ এর উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামীণ ঐতিহ্য মৃৎ শিল্প লালমনিরহাটে বিজিবি মহাপরিচালক কর্তৃক বন্যাদূর্গতদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে বাঁশশিল্পীরা অন্য পেশায় ঝুঁকছেন লালমনিরহাটে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস-২০২৪ উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত লালমনিরহাটে তিস্তা নদী নিয়ে সুচিন্তিত ভাবে কাজ করা হোক!
নির্ধারিত সময়ে প্রশ্নপত্র না পৌচ্ছায় পরীক্ষা দিতে পারলো না শত শত চাকুরী প্রত্যাশী

নির্ধারিত সময়ে প্রশ্নপত্র না পৌচ্ছায় পরীক্ষা দিতে পারলো না শত শত চাকুরী প্রত্যাশী

আলোর মনি রিপোর্ট: লালমনিরহাট জেলা প্রশাসনের দ্বায়িত্বের অবহেলার কারণে নির্ধারিত সময়ে মেঘনা সেটের প্রশ্নপত্র না পাওয়ায় লালমনিরহাট জেলার কয়েকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রায় ৩শতাধিক পরীক্ষার্থী সরকারি প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা দিতে পারেনি। এ সময় তারা পরীক্ষা দিতে না পারায় পরীক্ষা কেন্দ্রে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করেছেন।

 

শুক্রবার (২২ এপ্রিল) লালমনিরহাট জেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা চলাকালে লালমনিরহাট আদর্শ ডিগ্রী কলেজ, লালমনিরহাট সরকারি কলেজ ও সাপ্টিবাড়ি ডিগ্রী কলেজে এমন ঘটনা ঘটে।

 

জানা যায়, এবারে লালমনিরহাটে প্রায় ১৫হাজার ৬শতজন পরীক্ষার্থী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেয়। এই নিয়োগ পরীক্ষায় পদ্মা, মেঘনা, যমুনা ও সুরমা এই ৪ সেটে পরীক্ষা হওয়ার কথা। লালমনিরহাট জেলার ৩টি কেন্দ্রে পদ্মা, যমুনা ও সুরমা সেটের পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে পারলেও যারা মেঘনা সেটের পরীক্ষার্থী তারা পরীক্ষা দিতে পারেননি। কারণ ওই ৩টি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেঘনা সেটের প্রশ্নপত্র নির্ধারিত সময়ে আসেনি। পরীক্ষা শেষ হওয়ার প্রায় দেড় ঘন্টা পর কেন্দ্রগুলোতে মেঘনা সেটের প্রশ্নপত্র আসে।

 

যদিও লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আবু জাফরের নির্দশনায় পরীক্ষা কেন্দ্রের প্রধানগণ পরে বেলা সাড়ে ১২টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত সময়ে মেঘনা সেটের পরীক্ষার্থীদের পুনরায় পরীক্ষা নেন। কিন্তু পরীক্ষার নির্ধারিত সময় পার হয়ে যাওয়ার পর মেঘনা সেটের অনেক পরীক্ষার্থী কেন্দ্র ছেড়ে চলে যান।

 

মেঘনা সেটের এই পরীক্ষার্থীদের মধ্যে কিছু সংখ্য্যক পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিলেও অধিকাংশ পরীক্ষার্থী বিক্ষোভ প্রদর্শণ করে কেন্দ্র ত্যাগ করে চলে যান।

 

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় এমন অবহেলার জন্য লালমনিরহাট জেলার প্রধান জেলা প্রশাসককে দায়ী করে জামসুর রহমান নামে এক পরীক্ষার্থী বলেন, দীর্ঘদিন প্রতিক্ষার পর মনে অনেক আনন্দ নিয়ে পরীক্ষা দিতে এসেছিলাম। কিন্তু সকাল ১১টায় পরীক্ষা শুরু হওয়ার পর জানতে পারি আমার মেঘনা সেটের কোন প্রশ্নপত্র কেন্দ্রে আসেনি। তাই কেন্দ্র প্রধান মেঘনা সেটের পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্র থেকে বাহির করে দেন। পরে আমরা মেঘনা সেটের পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা কেন্দ্রে বিক্ষোভ করতে থাকি।

 

বিক্ষোভ প্রদর্শণের সময়ে কেন্দ্রে যাতে কোন রকম বিশৃংখলা বা পরীক্ষায় ব্যাঘাত সৃষ্টি না হয় সেজন্য সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এরই মধ্যে লালমনিরহাট আদর্শ ডিগ্রী কলেজের পরীক্ষা কেন্দ্র প্রধান অধ্যক্ষ একেএম মাহবুবুল আলম মিঠু পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর মেঘনা সেটের পরীক্ষার্থীদের সাড়ে ১২টা তাদের পরীক্ষা নেয়া হবে জানান।

 

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আবু জাফর সাংবাদিকদের বলেন, কারিগরী ত্রুটির কারণে মেঘনা সেটের প্রশ্নপত্র না আসায় মেঘনা সেটের পরীক্ষার্থীরা সঠিক সময়ে পরীক্ষা দিতে পারনি। তবে নির্ধারিত সময়ের কিছুটা পরে মেঘনা সেটের পরীক্ষার্থীদের পুনঃরায় পরীক্ষা নেয়া হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন




এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Design & Developed by Freelancer Zone